Monday 29 January

বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু যে ১০টি পাহাড়

যদি হিসেব করা হয়, পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দরতম জিনিস গুলো কি? তাহলে তার মাঝে অবশ্যই উপরের দিকে থাকবে গর্ব নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকা কিছু বিশাল পর্বতমালাআর তার মাঝেই রয়েছে পৃথিবীর সবচেয়ে উঁচু কয়েকটি পর্বত। যারা বিশালতা, সৌন্দর্যতা, দুর্গমতা মোট কথা সব দিক থেকেই ছাড়িয়ে গিয়েছে অন্যদের।পৃথিবী সৃষ্টির ইতিহাস যুগ যুগ ধরে এরাই বহন করছে। আর আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য হচ্ছে বিশ্বের সর্বোচ্চ এই ১০ টি পাহাড়ই সমুদ্র পৃষ্ঠ থেকে গড়ে ৮০০০ মিটার উঁচু তে রয়েছে।
তাহলে চলুন জেনে আসি কোন ১০টি দৈত্য সমতুল্য পাহাড় দখল করে রেখেছে বিশ্বের সর্বোচ্চ পর্বত মালার আসিন!
 
10. Annapurna ( অন্নপূর্ণা )
নেপালের হিমালয় পর্বত মালার উত্তর-কেন্দ্রীয় অঞ্চলে অন্নপূর্ণার অবস্থান। হিমালয়ের বিস্তৃত পর্বত মালার মাঝে উত্তরাঞ্চল এর সর্বোচ্চ চূড়াকেই অন্নাপূর্ণা নামে ডাকা হয়। এই মায়াবিনী  অন্নাপূর্ণা দখল করে রেখেছে পৃথিবীর ১০ম সর্বোচ্চ পর্বত মালার আসন। এর আনুমানিক উচ্চতা ২৬,৫৪৫ ফিট বা ৮,০৯১ মিটার! বিশ্বের বিপদজনক কিছু পাহাড় ট্র্যাকিং লিস্টে অন্নাপূর্ণার অবস্থান প্রথম দিকেই। আর হিসেব মতে অন্নাপূর্ণার পথে যারা এ পর্যন্ত যাত্রা করেছেন তাদের মাঝে মৃত্যুর হার প্রায় ৪০% ! তবে সূর্য ডুবার সময় অন্নাপূর্ণা কে দিয়ে যায় এক মায়াবিনী চেহারা। যার টানেই হয়তো মানুষ মৃত্য কে তোয়াক্কা না করে ছুটে চলে অন্নাপূর্ণার পথে ।
 
9. Nanga Parbat (নাঙ্গা পর্বত)
নাঙ্গা পর্বত পৃথিবীর নবমতম লম্বা পর্বত এবং এর উচ্চতা প্রায় ২৬.৬৬০ ফুট (৮,২৬৬ মিটার)! বিংশ শতাব্দীর প্রথমার্ধের দিকে এটি "কিলার মাউন্টেন" নামে পরিচিত ছিল। কারণ, এর পথ যাত্রা মানুষের নিত্য মৃত্যুর কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছিলো। কিন্তু এখন এটিকে উর্দুতে উলঙ্গ পর্বত নামেই ডাকা হয়! আর মজার ব্যপার হলো যদিও এই পাহাড় টি পাকিস্তানের এটি গিল্গিত-বালতিস্তান অঞ্চলের ডাইমিরেতে অবস্থিত কিন্তু আপনি যদি এর চূড়ায় উঠতে পারেন তখন কিন্তু আপনি পাকিস্তানের সীমানার বাহিরে!
 
8. Manaslu (মানাসলু)

নেপালের পশ্চিম-কেন্দ্রীয় অংশে নেপালের হিমালয় অঞ্চলের মনসিশি হিমালের মধ্যে মানাসলু অবস্থিতএটি পৃথিবীর অষ্টম সর্বোচ্চ চূড়া ১৯৫৬র ৯ই জুন তোশিও ইমিশিনি এবং গিয়ালজেন নরবু নামে ২ জাপানি ভদ্রলোক প্রথম মানাসলুর বুকে আরোহণ করেন। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে এর উচ্চতা প্রায় ২৬ হাজার ৭৮১ ফিট যা প্রায় ৮,১৬৩ মিটারের সমান!

 

7. Dhaulagiri (ধবলগিরি)

প্রায় ২৬,৭৯৫ ফুট (৮,১৬৭ মিটার) লম্বার এই পর্বত পৃথিবীর সপ্তম উঁচু পাহাড়। নেপালের উত্তরে এর অবস্থান। একে শ্বেত পাহাড় নামেও ডাকা হয়, কারণ ১২ মাসেই এটি শ্বেত বরফে ঢাকা থাকে । দৌলগিরির দক্ষিণ ও পশ্চিমাঞ্চল উভয়ই বিশাল খাঁদ বিশিষ্ট্য; প্রতিটি খাঁদ তার ভিতর থেকে ৮০০০ মিটার উপরে বৃদ্ধি পেয়ে আবার নীচে নেমে গিয়ছে যা এর ভয়ংকর রূপ কে আরো দৃঢ় করেছে। মজার ব্যপার হলো প্রায় ৩০ বছর যাবত মানুষ এটিকেই পৃথিবীর সর্বোচ্চ চূড়া হিসেবে জানতো! পরে এই ভুল ভাঙে।
 
6. Cho Oyu (চো ওইয়ু)
পৃথিবীর ৬ষ্ঠ সর্বোচ্চ পর্বত চো ওয়ূ সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৮,২০১ মিটার (২৬,৯০৬ ফুট) উঁচুতে অবস্থিত। মাউন্ট এভারেস্ট থেকে ২০ কিমি. পশ্চিমে মহালাঙ্গুর হিমালয় এর Khumbu উপবিভাগের পশ্চিমতম অঞ্চলকে এর সর্বোচ্চ শিখর ধরা হয়।
 
5. Makalu (মাকালু)
নেপাল ও চীনের মধ্যকার সীমান্তে দক্ষিণ-পূর্ব অঞ্চলে মাকালুর অবস্থান। এর ৮,৪১৮ মিটার (২৭,৮২৫ ফুট) উচ্চতা একে পৃথিবীর পঞ্চম সর্বোচ্চ পর্বতগুলোর মাঝে একটি হতে সাহায্য করেছে। মাকালু পাহাড়টির আকৃতি অনেকটা পিরামিড এর মতো দেখতে। মাকালুর চারপাশের চারটি খাঁড়া কোণা একে দেখতে আরো আকর্ষণীয় করেছে। ১৯৫৪ সালে রাইলি কিগান নামে এক পর্বত আরোহীর নেতৃত্বে আমেরিকান একদল প্রথম মাকালু তে আরোহণ করেন।
 
4. Lhotse (লোৎসে)
এভারেস্টের সাথে সংযুক্ত এলহোটসে পৃথিবীর চতুর্থ সর্বোচ্চ পাহাড়এলহোটসে নামের অর্থ হচ্ছে দক্ষিনের চূড়াএভারেস্টের দক্ষিনে এর অবস্থান হওয়ায় এর নামকরণ করা হয়েছে এলহোটসে। এলহোটসের সুউচ্চ শৃঙ্ঘটি সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৮,৫১৬ মিটার (২৭,৯৪০ ফিট) উঁচুতে অবস্থিত। এটি তিব্বত (চীন) এবং নেপালের খাম্বু অঞ্চলের সীমান্তে অবস্থিত।
 
3. Kangchenjunga  (কাঞ্চনজঙ্ঘা)

হিমালয় রেঞ্জ থেকে দক্ষিণে ১২ মাইল পরেই এ সুশ্রী কাঞ্চনজংগার দেখা মিলবে। পৃথিবীর তৃতীয় সর্বোচ্চ এই পর্বতমালার উচ্চতা ৮,৫৮৬ মিটার (২৪,১৬৯ ফুট)। ইন্ডিয়ার ভিতরে কাঞ্চনজংগাই  হচ্ছে সর্বোচ্চ পাহাড়। অনেক ধর্মলম্বীদের কাছে এই পাহাড়টি পবিত্র একটি জায়গা। ভোরের আলো যখন কাঞ্চনজংগার চুড়ায় এসে পড়ে তখন মনে হয় কেঊ বুঝি ওর সৌন্দর্যে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে! আর শত শত মাইল দূর থেকেও সেই আলোর আভা দেখা যায়। আমাদের বাংলাদেশের পঞ্চগড় থেকেও মাঝে মাঝে কাঞ্চনজংগার চূড়ার দৃশ্য দেখা যায়। আর এর সৌন্দর্য সত্যিই ভাষায় প্রকাশ করার মতো না।

 

2. K2  (কে-টু)

মাউন্ট এভারেস্ট এর পর পৃথিবীর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পর্বতমালা হচ্ছে K2  চীন এবং পাকিস্তানের সীমান্তে K2 এর অবস্থান। এ সুউচ্চ পাহাড়ের বিশালতা গিয়ে ঠেকেছে মাটি থেকে ৮,৬১১ মিটার বা ২৪,২৫১ ফুট উপরে গিয়ে! K2 পাকিস্তানের মাঝে সর্বোচ্চ পাহাড় বলে পরিচিত। এ পাহাড়ের আরেক নাম স্যাভেজ পাহাড় ও বলা হয় । কারণ, এর পথে মৃত্যু পথ যাত্রীর সংখ্যাটা একটু বেশিই K2 এর চূড়ায় পৌঁছানো প্রতি ৪ জনের মাঝে ১ জন মারা গিয়েছে এ পর্যন্ত !!

 

1. Mount Everest (এভারেস্ট)

মাউন্ট এভারেস্ট হচ্ছে পৃথিবীর সর্বোচ্চ পর্বতমালা, সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৮,৮৪৮ মিটার (২৯,০২৯ ফুট) উচ্চতায় এ দৈত্যাকার পর্বতমালার অবস্থান। এটি স্যাগারমথ জোন, নেপাল ও তিব্বত এবং চীন সীমান্তে অবস্থিত হিমালয় পর্বত মালার প্রধান অংশ। এর মনকাড়া সৌন্দর্য যে কারোই মন কাড়তে বাধ্য। হিমালয়ের বিশালতাই সবাইকে এর দিকে আকৃষ্ট করে। তাই তো প্রতিবছর হাজার হাজার পর্যটক হিমালয়ের পাদদেশে ভিড় করে এর সৌন্দর্য উপভোগ এর জন্য। আর দুঃসাহসীরা পাড়ি জমায় হিমালয়ের চূড়ার দিকে। ১৯৭৮ সালের ৮মে অস্ট্রিয়ার পিটার হেবলার এবং ইতালির রেইনহোল্ড মেসনার প্রথম অক্সিজেন ছাড়া এভারেস্ট এর চূড়ায় সফলভাবে অরোহণ করেন। পৃথিবীর সর্বোচ্চ পর্বত মাউন্ট এভারেস্ট জয় করার ইচ্ছে বা আগ্রহ না থাকলেও একবার ঘুরে আসতে পারেন মাউন্ট এভারেস্ট বেস ক্যাম্প থেকে। কেবল বেস ক্যাম্পটি সমুদ্রপৃষ্ট থেকে ৫ হাজার ৩৬৪ মিটার উঁচুতেপৃথিবীর ৭টি প্রাকৃতিক আশ্চর্যের মাঝে মাউন্ট এভারেস্ট বা হিমালয় পর্বত মালা অন্যতম।


এই ছিলো পৃথিবীর সর্বোচ্চ ১০ টি চূড়ার গল্প। আশা করি আমাদের এবারের আর্টিকেল টি আপনাদের জানার জগতকে আরো সমৃদ্ধ করবে। আশা করবো নতুন নতুন বিষয়ে জানার ব্যাপারে আমরা সবাই আগ্রহী থাকবো।
সপ্ন দেখুন, সপ্ন নিয়েই বাঁচুন। আর, সপ্নঘুড়ির সাথেই থাকুন । ধন্যবাদ ।